Muktodhara Sume - Megh Bristi Rode

Solo Performance (Sume) – Megh Bristi Rode

Posted on Posted in 2016, Program Prime, Program Solo

সুমির একক সন্ধ্যাঃ মেঘ বৃষ্টি রোদে

স্থানঃ শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়েতন, কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরী, শাহবাগ, ঢাকা
তারিখঃ শনিবার, সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৬
সময়ঃ সন্ধ্যা ৬ঃ৩০ টা
আয়োজকঃ মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র

কণ্ঠশিল্পীঃ মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি
মঞ্চ পরিকল্পনাঃ হাসিবুর রহমান
আবহ সংগীতঃ কমল খালিদ
শব্দযন্ত্রঃ সমীর সাউন্ড
আলোক প্রক্ষেপনঃ স্পটলাইট
গ্রাফিক্স ও মুদ্রণঃ ইম্প্রেশন মিডিয়া কমিউনিকেশন

কৃতজ্ঞতাঃ

  • আজহারুল হক আজাদ
  • মাসকুর-এ-সাত্তার কল্লোল
  • শহীদুল আলম নাজু
  • মাশরুক রহমান টিটু
  • জি এম মোর্শেদ
  • লিপিয়া নাসরিন
  • মশিউর রহমান তপন

সভাপতির কথা

Anisa Zaman Chapa
Anisa Zaman Chapa

মানুষের জন্যই শিল্প। মানব কল্যাণের জন্যই শিল্প।

আবহমান বাংলার শিল্পমাধ্যম আবৃত্তিকে আশ্রয় করে আমরা মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র ১৯৯০ সাল থেকে পথ চলছি। পূর্ণাঙ্গ আবৃত্তি প্রযোজনা ও বৃন্দ পরিবেশনার পাশাপাশি মুক্তধারা একক আবৃত্তিতে সংগঠনের শিল্পীদের মেধা বিকাশের সুযোগ সৃষ্টির প্রয়াসে ‘জানাশোনা অচেনা কথা’ ও ‘হৃদয়ে-চৈতন্যে-বোধে’ শীর্ষক দুইটি ধারাবাহিক অনুষ্ঠান নিয়মিত আয়োজন করে আসছে। এছাড়াও মুক্তধারা ইতোমধ্যে তিনটি একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে। আবৃত্তিশিল্পী রফিকুল ইসলামের প্রথম ও দ্বিতীয় একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আয়োজন করে ২০০৫ ও ২০১৩ সালে এবং আবৃত্তিশিল্পী তামান্না সারোয়ার নীপার প্রথম একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয় ২০১৫ সালে। মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির প্রথম একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান ‘মেঘ-বৃষ্টি-রোদে’ মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র আয়োজিত চতুর্থ একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান।

আমাদের সহযাত্রী আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির মুক্তধারার সাথে নিরবিচ্ছিন্ন পথচলা শুরু ১৯৯৫ সাল থেকে। নিজেকে ক্রমশঃ ঋদ্ধ থেকে ঋদ্ধতর করে তোলার প্রয়াসে নিবেদিত সুমি ক্রমাগত সাধনা ও চর্চার মধ্য দিয়ে নিজেকে তৈরি করেছেন। বিভিন্ন সময়ে সংঘঠনের নির্বাহী সদস্য হিসেবে ও ২০০৯ সাল থেকে অর্থসম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন দক্ষতার সাথে।

দীর্ঘদিন আবৃত্তি চর্চায় নিষ্ঠাবান একজন শিল্পী দাবী রাখে একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানের। সাংগঠনিক চর্চায় ও সততায় বিশ্বাসী মুক্তধারা আনন্দিত আজকের আয়োজনটি করতে পেরে। মুক্তধারার সকল শুভানুধ্যায়ীদের জানাই অনিন্দন ও কৃতজ্ঞতা। সকল দর্শক-শ্রোতাকে আন্তরিক অভিনন্দন। এ আয়োজনকে সফল করার জন্য যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কথায়, কাজে, পরামর্শে ও আর্থিক সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।

আনিসা জামান চাঁপা
সভাপতি
মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র


সাধারণ সম্পাদকের কথা

Rafiqul Islam
Rafiqul Islam

মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে ছাব্বিশ বছরের পথচলায় পূর্ণাঙ্গ আবৃত্তি প্রযোজনা, বৃন্দ পরিবেশনা ও তরুণ প্রতিশ্র“তিশীল আবৃত্তিশিল্পীদের একক পরিবেশনার সুযোগ সৃষ্টিকে সব সময়েই গুরত্ব দিয়ে বিবেচনা করে আসছে। মুক্তধারা আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংগঠনের সদস্য-শিল্পীদের একক পরিবেশনা যতোটা গুরত্ব পায় ঠিক ততোটাই গুরুত্ব দিয়ে মুক্তধারা সতীর্থ অন্যান্য সংগঠনের তরুণ আবৃত্তিশিল্পীদের আমন্ত্রণ জানিয়ে থাকে।

পূর্ণাঙ্গ আবৃত্তি প্রযোজনা ও বৃন্দ পরিবেশনার পাশাপাশি মুক্তধারা একক আবৃত্তিতে সংগঠনের শিল্পীদের মেধা বিকাশের সুযোগ সৃষ্টির প্রয়াসে ‘জানাশোনা অচেনা কথা’ ও ‘হৃদয়ে-চৈতন্যে-বোধে’ শীর্ষক দু’টি ধারাবাহিক অনুষ্ঠান নিয়মিত আয়োজন করে আসছে। ‘জানাশোনা অচেনা কথা’ অনুষ্ঠানে মুক্তধারার শিল্পীরা অপেক্ষাকৃত কম পঠিত ও নতুন কতিার একক আবৃত্তি পরিবেশন করে থাকে এবং ‘হৃদয়ে-চৈতন্যে-বোধে’ অনুষ্ঠানে অপেক্ষাকৃত জ্যেষ্ঠ দু’জন করে আবৃত্তিশিল্পী ত্রিশ মিনিট করে আবৃত্তি করে থাকে। এছাড়াও মুক্তধারা ইতোমধ্যে সংগঠনের জ্যেষ্ঠ আবৃত্তিশিল্পীদের তিনটি একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় মুক্তধারার জ্যেষ্ঠ আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির ‘মেঘ-বৃষ্টি-রোদে’ শীর্ষক এই আবৃত্তি অনুষ্ঠান।

পারিবারিক ও পেশাগত নানা সীমাবদ্ধতা সত্বেও সুমি প্রায় কুিড় বছর ধরে মুক্তধারায় কাজ করে যাচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে সংগঠনের নানা গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছে এবং একখনও করছে। সাংগঠনিক কাজের পাশাপাশি পান্ডুলিপি গ্রন্থনা ও নির্দেশনা প্রদান করে আসছে এবং নিজের একক চর্চায়ও নিয়ত নিষ্ঠাবান। এক সন্তানের জননী অধ্যাপনায় নিয়োজিত সুমি এখনও কিছুটা ছেলেমানুষ ও অভিমানী। মুক্তধারা পরিবার তথা সাংস্কৃতিক অঙ্গনে সংগঠনের ঊর্ধ্বে উঠে সকলের সাথে সুমির পারিবারিক স্বজন ও বন্ধুসুলভ অধিকারের সদাচরণ অনেক সময় তার জন্য বিব্রতকরও হয় বটে। সুমির চরিত্রের শিশুসুলভ সারল্য তার শিল্পীসত্ত্বাকে দিয়েছে এক বিশেষ বৈশিষ্ট, তা যেন কখনও কোন কুটিল আবর্তে নিপতিত না হয়।
আবৃত্তি-অন্তপ্রাণ সুমির কবিতা উচ্চারণ শিল্পসুষমামন্ডিত হয়ে দর্শক-শ্রোতার অন্তরে প্রোথিত হোক, এই-ই প্রত্যাশা। আর তা হলেই মুক্তধারার এই আয়োজন সার্থক হবে। কৃতজ্ঞতা জানাই সকল দর্শক-শ্রোতা ও শুভানুধ্যায়ীদের।

রফিকুল ইসলাম
সাধারণ সম্পাদক
মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র


আবৃত্তিশিল্পী

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি

Muktodhara Sumeজন্ম ১৬ নভেম্বর ১৯৭৭ খ্রিস্টাব্দ। ইডেন মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে উদ্ভিদ বিজ্ঞানে সম্মানসহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন শেষে লাইসিয়াম কলেজে অধ্যাপনা করছেন। বাবা মোঃ আব্দুল খালেক বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশনের ডেপুটি ম্যানেজার হিসেবে অবসর গ্রহণ করেছেন, মা মজিদা বেগম অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক, স্বামী আতিকুর রহমান সিনিয়র এম.আই.এস অফিসার পদে একটি এনজিও-তে কর্মরত। সুমি মুগ্ধ নামের এক পুত্র সন্তানের জননী।

ছোটবেলা থেকে সংস্কৃতির সাথে তার বন্ধুত্ব। স্কুল-কলেজের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে আবৃত্তি, উপস্থাপনা, বিতর্ক, একক অভিনয়, রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছেন অনেকবার। স্কুল-কলেজের দেয়াল পত্রিকা, ম্যাগাজিনেও তার লেখা প্রকাশিত হয়েছিল। গান তার খুব প্রিয়। সংস্কৃতির সকল ধারা আর্কষণ করলেও আবৃত্তিই তার মূল চর্চার বিষয়।
আগস্ট, ১৯৯৫ সাল থেকে মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের সদস্য হিসেবে বিভিন্ন সময়ে নানা সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৯ থেকে বর্তমান পর্যন্ত সংগঠনের অর্থ-স¤পাদকের দায়িত্বও পালন করছেন।

মুক্তধারার প্রায় সকল বৃন্দ ও প্রযোজনায় অংশগ্রহণ এবং আয়োজিত অনুষ্ঠানে একক আবৃত্তি পরিবেশন ছাড়াও বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন ও সরকারি বেসরকারি নানা প্রতিষ্ঠানের আমন্ত্রণে ও বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠানে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আবৃত্তি পরিবেশন ও অনুষ্ঠান উপস্থাপনা এবং বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে আবৃত্তি পরিবেশন করেছেন।

তার গ্রন্থিত আবৃত্তি পা-ুলিপি সমূহ হলো জন্মভূমি, হে নতুন প্রণমি তোমারে, আলোকিত চৈতন্যের স্বরে, দ্বিধাহীন অভিযাত্রা, ঐক্যে বাঁধি বাংলার স্বাধীনতা। তিনি মুক্তধারার উল্ল্যেখযোগ্য প্রযোজনা সমূহের মধ্যে অন্যতম প্রযোজনা নক্ষত্রের মৃত্যু, কৃষ্ণপক্ষে পূর্ণিমা গ্রন্থনা করেছেন ও নির্দেশনা দিয়েছেন। সুমি মুক্তধারা আয়োজিত হৃদয়ে-চৈতন্যে-বোধে ৩০মিনিটের একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানে আবৃত্তি পরিবেশন করেন। সুমি মুক্তধারা প্রকাশিত আবৃত্তি অ্যালবাম হৃদয়ে-চৈতন্যে-বোধে-১ এ অংশগ্রহণ করেন।

সুমি বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির যৌথ আয়োজনে আবৃত্তির নিয়মিত অনুষ্ঠান এই তো জীবন এই তো মাধুরী-তে ৩০মিনিট একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন।

সুমি বিশ্বাস করেন আবৃত্তি একদিকে মানুষকে যেমন ভালোবাসতে শেখায় তেমনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সুদৃঢ়ভাবে দাঁড়াতে শেখায়। তাই আবৃত্তির শক্তিতেই মেঘ-বৃষ্টি-রোদে মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং কাব্যের মাঝেই বেঁচে থাকতে চান।

শুভেচ্ছা

নিত্য শুভ কামনা, সুমি

সংস্কৃতির নানা ধারায় বিবিধ কাজ হচ্ছে এর গতি কেউ রোধ করতে পারে না। আজ আর এ ভাবনা নিয়ে কেউ সংস্কৃতির চর্চা করে না যে ‘শিল্প কেবল শিল্পের জন্য’।
শিল্প জীবনের প্রতিচ্ছবি। নিত্যকার এই যে ঘাত-প্রতিঘাত, আনন্দ বেদনা, সংগ্রাম, প্রতিবাদ, প্রত্যাশা এ নিয়েই শিল্প সৃষ্টি। জীবন অতিবাহিত করা, অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার যে সংগ্রাম এ দায়বোধ থেকে শিল্প কাজ করে যায়।
বাংলাদেশে আবৃত্তি চর্চার গতি অবশ্যই আশাপ্রদ। দেশের নানা প্রান্তে আবৃত্তিশিল্পীরা কাজ করে যাচ্ছে। প্রগতির প্রতিবন্ধকতা দেখা দিলেই রুখে দাঁড়ায় সারাদেশের শিল্পীরা, তখন আবৃত্তি রূপ নেয় হাতিয়ার-এ। এহেনো ক্রান্তিকাল এলেই সারাদেশের আবৃত্তিশিল্পীরা একটি মঞ্চে দাঁড়িয়ে যায়, তা সম্ভব হচ্ছে কেবল মাত্র বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ-এর নির্দেশে।

মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র সমন্বয় পরিষদ যুক্ত একটি বলিষ্ঠ সংগঠন। দীর্ঘকালের চর্চায় অনেক মুখ উজ্জ্বল রূপে দেখা দিয়েছে। নিরন্তন কাজ করে চলেছে এ দল।
মাহামুদা সিদ্দিকা সুমি এ সংগঠনের ভেতর দিয়ে গড়ে উঠেছে। দীর্ঘদিনের চর্চায় তাকে নিষ্ঠাবান একজন শিল্পী হিসেবে দেখেছি আমি। ওর অনেক সুনির্দেশনার মঞ্চায়নও আছে। সুমি খুব দ্রুত চলে না, ধীর লয়ে মেপে মেপে গভীর অনুভবের মধ্য দিয়ে পথহাঁটে – এখানেই আমার ভালো লাগা ওর আবৃত্তির প্রতি। ও অনেক দূর এগুবে এ বিশ্বাস আমার আছে।

সুমির একক আবৃত্তির অনুষ্ঠান আমার জন্য আনন্দের বৈকী। অপেক্ষায় থাকলাম।

নিত্য শুভার্থী

বেলায়েত হোসেন বেলায়েত হোসেন, আবৃত্তিশিল্পী, প্রশিক্ষক

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি, আমার প্রায় সমবয়সি, সহযোদ্ধা, বন্ধু প্রতিম এবং আবৃত্তি অঙ্গনে যে কয়জন নারী দীর্ঘ সময় ধরে আবৃত্তিকে ভালোবেসে, টিএসসিকে ঘড়বসতি বানিয়ে, নিয়মিত চর্চা করে আসছেন তাদের মধ্যে অন্যতম। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি যেকোন শিল্পীর জন্য একক পরিবেশনা একটি আরাধ্য বিষয়, এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট শিল্পী ও তাঁর শ্রোতারা শিল্পীর দক্ষতার পরিমাপ করতে পারে, যা পরবর্তীতে নিজেকে আরো পরিপক্ক করতে সহযোগিতা করে। কারণ সত্যিকার অর্থে বিচ্ছিন্নভাবে একটি দুটি কবিতা পড়ে নিজের পারফরমেন্সের পূর্ণাঙ্গ বিচার বিশ্লেষণ করা খুবই দুরূহ কাজ এবং প্রায় অসম্ভব বলে আমি মনে করি।

সেক্ষেত্রে নিজেকে সত্যিকারভাবে শিল্পী হিসেবে আবিষ্কার করার সবচেয়ে কঠিন কাজটিই হলো একক পরিবেশন, কারণ আবৃত্তির মাধ্যমে দীর্ঘক্ষণ শ্রোতাদের মনযোগ ধরে রাখার মতো একটি শক্ত কাজ এককশিল্পীকে আবৃত্তি পরিবেশনের ক্ষেত্রে নিজের বুদ্ধি খাটিয়েই করতে হয়। সুমি সেই কঠিন কাজটি করার জন্য মনস্থির করেছে বলে তাঁর বন্ধু হিসেবে আমি খুবই আনন্দিত। তবে একক পরিবেশনার ক্ষেত্রে সুমির বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ আয়োজিত “এইতো জীবন, এইতো মাধুরী” শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রায় একটানা আধঘণ্টা একক পরিবেশনাটি তার কাজটিকে আরো সহজ করে দিবে বলে আমার ধারণা। মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি তার একক পরিবেশনায় শ্রোতাদের মুগ্ধ করবে বলে আশা রাখি।

মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চাকেন্দ্র নিয়মিতভাবে অপেক্ষকৃত তরুণ সদস্যদের দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে অন্যদের কাছে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে বলে আমি মনে করি। যা আবৃত্তি, আবৃত্তিশিল্পী ও দলগত চর্চাকে আরো বেগবান করবে। মুক্তধারা’র মূল চালিকাশক্তি বিশিষ্ট আবৃত্তিশিল্পী রফিকুল ইসলাম যিনি ঘণ্টার পর ঘণ্টা মুখস্ত আবৃত্তি করেন তাঁর সংগঠনের এরকম বলিষ্ঠ একটি পদক্ষেপের প্রসংশা না করে কোন উপায় থাকে না। আমি মুক্তধারা ও আজকের শিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করি।

জয়তু সুমি।। জয়তু মুক্তধারা… জয় হোক আবৃত্তি।।

মাসুম আজিজুল বাসার মাসুম আজিজুল বাসার সভাপতি ত্রিলোক বাচিক পাঠশালা

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি; একক আবৃত্তিসন্ধ্যা করবে- এটা সে আরও আগেও করতে পারতো; তবে যখন যা হয় তখন সেটিই তার সময়। আজ যখন অসাম্প্রদায়িক বাঙালি চেতনায় বিশ্বাসী বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাস্প ছড়িয়ে দিতে চাচ্ছে কোন এক স্বার্থান্বেষী চক্র, যখন শিল্পাঙ্গনকে স্থবির আর শিল্পীর মুখে কলুপ এঁটে দিতে চায় (!)- তেমনি এক সময়ে সুমিরা বেরিয়ে আসবে- এটিই চিরন্তন; এটিই শিল্পের দায় অঙ্গীকার। সুমি শুধু একজন সাহসী এবং ভালো আবৃত্তিশিল্পীই নয়- সুমি একজন ভালো মনের মানুষও; সুমি শুধু আমার নয় আমাদের প্রাণের মানুষ।

সুমির একক আবৃত্তিসন্ধ্যার আয়োজক মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র এবং সভাপতি আনিসা জামান চাঁপা ও সাধারণ সম্পাদক দেশবরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী রফিকুল ইসলামকেও জানাতে চাই অকৃত্রিম শ্রদ্ধা।

সুমির একক আবৃত্তিসন্ধ্যা আমার মতো এরকম অনেক আবৃত্তিকর্মীকে ঘর থেকে বের করে আনবে- আমি প্রিয় বন্ধু মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির প্রথম একক আবৃত্তিসন্ধ্যা সর্বাঙ্গীন সফলতা কামনা করি।

সুমি! আবৃত্তি বাঁচুক তোমার ছোঁয়ায়।

রুমা সরকার রুমা সরকার, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি উচ্চারণ আকাডেমি

একই কক্ষপথে আমরা আছি, আছি একই ছায়াপথে। তবু সে আমার কাছে এখনও ছেলেমানুষ। হাস্যকর হলে কথাটা সত্যি। টিএসসিতে পাশাপাশি সংগঠনে কাজ করলেও অন্তরঙ্গতা আমাদের ফেসবুকের ভারচুয়াল জগতে বেশি। এর একটা অত্যন্ত ভালো দিক হলো, শিল্পের বাইরে গিয়ে মানুষ সুমিকে আমি চিনেছি, আপন করে নিয়েছি এবং অপত্য স্নেহে ভালোবাসতে পেরেছি। কারণ মানুষ তার কর্মপরিচয়ের বাই যখন শুধুমাত্র মানুষ হিসেবে উত্তীর্ণ হয়, আমার বড় ভালো লাগে। সুমি সব কিছুর বাইরে তাই আমার কাছে সম্পূর্ণ একজন মানুষ এবং আমি ভালোবাসি তাকে।

পথটা আমাদের একই। কবিতা এবং কণ্ঠ নিয়েই আমাদের কাজ, আমরা ধারণ করি বাঙালি ঐতিহ্যের আহবমান সংস্কৃতি। আর কবিতার সুচিন্তিত বক্তব্য কণ্ঠে ও মননে ধারণ করে বা শিল্প বিকাশের নিরন্তর সাধনাই আমাদের ব্রত, আমাদের অঙ্গীকার। আবৃত্তিশিল্পের একজন কর্মী, শ্রোতা ও সহযাত্রী হিসেবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার উত্তীর্ণ মুহূর্তের স্মৃতি আমাকে আনন্দ দিয়েছে। মেধাবী এই বালিকা নিজেকে শিল্পের চর্চায় নিমগ্ন রেখে সাহসের সাথে এগিয়ে চলেছে। এই চলায় আমার সবটুকু ভালোবাসা থাকলো তার সাথে।

সুমির একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান সফলতার শীর্ষ ছুঁয়ে যাক- অনেক দীর্ঘ হোক এই যাত্রা এবং অব্যাহত থাকুক-
ভালোবাসা সহ

শান্তা শ্রাবণী শান্তা শ্রাবণী, স্থায়ী পরিষদ সদস্য, স্রোত আবৃত্তি সংসদ

সুমির জন্য শুভকামনা

আবৃত্তিশিল্পীরা অনেক কিছু পাওয়ার জন্য আবৃত্তি করেন বলে আমার মনে হয় না। কেবল আবৃত্তি ভালোবেসেই আবৃত্তি করেন। ভালোবাসার আনন্দে ভালোবেসে যান। আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি তেমনই একজন। প্রতিকূলতা নিশ্চয়ই ছিলো। থাকে তো। কিন্তু কখনো তাকে স্বল্প সময়ের জন্যেও থেমে যেতে দেখিনি। মঞ্চে তাকে নিয়মিত দেখেছি, দেখেছি নির্দেশনায়ও। এবার দেখবো তার একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানে। অনেক শুভকামনা…..

রহমতউল্লাহ নোমান রহমতউল্লাহ নোমান, নন্দনকানন

সুমির মেঘ বৃষ্টি রোদ

আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি। মেঘ বৃষ্টি রোদ- প্রকৃতিতে যাই থাকুক না কেন সুমি হাজির থাকে যেকোনো আবৃত্তি অনুষ্ঠানে। দ্রোহে-বিদ্রোহে-প্রতিবাদে মিছিলে কিংবা সমাবেশের একেবারে পুরোভাগে পাওয়া যায় ওকে। মুক্তধারার অনেক আবৃত্তি প্রযোজনা ও অনুষ্ঠানে নানা সময়ে শুনেছি সুমির দৃঢ় ঋজু প্রগাঢ় উচ্চারণ। এবার সেপ্টেম্বরের ২ তারিখে শরতের স্নিগ্ধ সন্ধ্যায় সুমির একক কণ্ঠে খেলা করবে মেঘ বৃষ্টি ও রোদের আলোছায়া। সুমির একক আবৃত্তি পরিবেশনা সুন্দর ও সফল হোক।

ওর জন্য অনন্ত শুভকামনা।

ইকবাল খোরশেদ ইকবাল খোরশেদ, নির্বাহী প্রধান, মুক্তবাক

আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি -আবৃত্তির টানে সুদীর্ঘ পথচলা। বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির যৌথ আয়োজনে এইতো মাধুরী এইতো জীবনসহ নানা আয়োজনে কণ্ঠের কারুকার্যে যার একক আবৃত্তি প্রশংসিত, যার গ্রন্থনা ও নির্দেশনায় তরুণ আবৃত্তিশিল্পীর পদচারণায় ঋদ্ধ হয়েছে আবৃত্তির মঞ্চ। তিলে তিলে গড়ে ওঠা এ শিল্পীর একক আবৃত্তির অনুষ্ঠান মেঘ বৃষ্টি রোদে আবৃত্তির প্রতি প্রগাঢ় ভালবাসা আর একাগ্রতার বহিঃপ্রকাশ।

আবৃত্তি একদিকে যেমন মানুষকে ভালবাসতে শেখায় তেমনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সুদৃঢ়ভাবে দাঁড়াতে শেখায় এই হলো শিল্পীর নিজস্ব বোধ।

এ বোধের তাড়নায় সুমির একক পরিবেশনা আবৃত্তি অনুরাগীদের মন ছুঁয়ে যাক এ প্রত্যাশায়-

অনুষ্ঠান সফল হোক, জয় হোক আবৃত্তির।

শুভেচ্ছাসহ

রফিকুদ্দৌলা রাব্বি রফিকুদ্দৌলা রাব্বি, সহ-সভাপতি, আবৃত্তি পরিষদ নওগাঁ নির্বাহী সদস্য, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ

sume20160902

ঘাতক-দালাল-যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার বিরোধী আন্দোলন ও তাদের বিচারের দাবীতে আন্দোলন থেকে শুরু করে মহিমা, ফাহিমা, পূর্ণিমা, তনু হত্যা ও নির্যাতনসহ সকল প্রতিবাদ ও সংগ্রামে মঞ্চে, রাজপথের উজ্জ্বল সহযাত্রী শিল্পী ও কর্মী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি। তার একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্যে মুক্তধারাকে ধন্যবাদ।

অভিনন্দন সুমিকে। তার এই একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান সুন্দর ও সফল হোক। জয় হোক আবৃত্তির।

Muktodhara
আহ্সান উল্লাহ তমাল আহ্সান উল্লাহ তমাল, সভাপতি, শব্দবৃত্তি

আবৃত্তি শিল্পী সুমির একক পরিবেশনা দলের অনুষ্ঠান হিসেবে গন্য হলো এবং মঞ্চায়ন ২ সেপ্টেম্বর । নি:সন্দেহে এ সুখবর । সুমি সংসারের দশদিক সামাল দিয়ে সংগঠন করে । সাংগঠনিক কার্যক্রমের সবটা জুড়েই ওর প্রবল উপস্থিতি আমাকে মুগ্ধ করে । সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সংগ্রাম-সৃজনের সকল আয়োজনে মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র দলবেঁধে অংশগ্রহন করে । বিশেষ করে মেয়েরা গত পাঁচ বছর মিছিলের অগ্রভাগে ব্যানার হাতে রাজপথে ছিল নির্ভিক । তাঁদের প্রতি আমার সম্মান অটুট রাখবে তাঁরা এ বিশ্বাস আমার আছে ।

সুমি ইতোমধ্য মিছিলের প্রিয়মুখ হয়ে উঠেছে সংস্কৃতি অঙ্গনে । শহীদ মিনারের শতরঞ্জিতে সাদা শাড়ির শ্যামলা মেয়েটির উপস্থিতি যেন আজ অনিবার্য এক বিষয় । সেই মেয়েটি তাঁর নিজস্ব সৃজন চিন্তার পসরা নিয়ে মঞ্চে দাঁড়াবে এতো তাঁরই সংগ্রমের সারথীদের জন্যে আনন্দ সংবাদ । মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের সকল কার্যক্রমে নারী শিল্পী-কর্মীদের ভূমিকা ও তৎপরতা চোখে পড়ার মত । এই সুবাতাস আমাদের সংস্কৃতি অঙ্গনের প্রতি ঘরে ঘরে পৌঁছে যাক ।

সুমিকে মাঝে মাঝে সন্তানের হাত ধরে টি.এস.সি.র সবুজ চত্তরে বা চায়ের দোকানের আড্ডায় সামিল হতে দেখি । আমি মুগ্ধ নয়নে ঐ দৃশ্য অবলোকন করি আর শ্রদ্ধোয় আমার মন ভরে ওঠে, আমার চোখ আদ্র হয় ছোটবেলার আমার মায়ের হাত মনেপড়ে । সুমী দলের আশা দশের আশা পূর্ণ করুক শিল্পের শর্তে এই প্রত্যাশা ।

হাসান আরিফ হাসান আরিফ, সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট

বন্ধু সংগঠন হিসেবে মুক্তধারা আবৃত্তিচর্চা কেন্দ্র এর সাথে ঘনিষ্ঠতা একটু বেশিই। একজন সদালাপী, বিনয়ী ও অমায়িক মানুষ মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি’র আজ একক আবৃত্তি সন্ধ্যা। নিবিড়ভাবে আবৃত্তি শিল্পের সাথে জড়িত সুমির মঙ্গল কামনা করছি। জয় হোক আবৃত্তির। জয় হোক আবৃত্তিশিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি’র।

সৈয়দ শহীদুল ইসলাম নাজু সৈয়দ শহীদুল ইসলাম নাজু, সাধারণ সম্পাদক, কথা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র

দেশের অন্যতম প্রধান আবৃত্তি দল মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের কর্ণধার রফিকুল ইসলামসহ অনেকেই আমার প্রিয় আবৃত্তিশিল্পী। এই দলের সদস্য “মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি” আমার অন্যতম পছন্দের আবৃত্তিশিল্পী। বহুদিন ধরে টিএসসিসহ বিভিন্ন মঞ্চে তাকে। আবৃত্তি করতে দেখেছি এরই সাথে সে গ্রন্থনা ও নির্দেশনায়ও পারদর্শী। এই অসাধারণ নিবেদিতপ্রাণ আবৃত্তিশিল্পী সুমির একক আবৃত্তিসন্ধ্যা “মেঘ বৃষ্টি রোদে” অত্যন্ত সাফল্যমণ্ডিত হবে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। আমি সুমির সর্বাঙ্গীন সাফল্য কামনা করছি।

আসলাম শিহির আসলাম শিহির, নাট্যব্যক্তিত্ব

কেবল একটি কবিতা আবৃত্তি ও অনেকগুলি কবিতা একসঙ্গে আবৃত্তির সময়ে ভিন্ন ভিন্ন মাত্রার সৃষ্টি হয়। কারণ একটি কবিতা আবৃত্তির ক্ষেত্রে অনুষ্ঠানটির সার্বিক বিষয় ও অন্যান্য আবৃত্তিশিল্পীর সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রাখা হয়, অথচ এককভাবে অনেকগুলি কবিতা আবৃত্তির সময়ে নিজ অনুকূলে মঞ্চ মায়া তৈরি করার প্রয়োজন হয়। পুরো মঞ্চে যেহেতু একজনই শিল্পী থাকবেন, সেহেতু শ্রোতা দর্শকের সাথে তার একটি মেলবন্ধন সৃষ্টি করতে হয়। তাতে সেই শিল্পীর প্রতিটি উচ্চারণের সঙ্গে একাত্ম হয়ে শোতৃগণ আবৃত্তি উপভোগে সক্ষম হন। আমাদের দেশে একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান নিয়মিতভাবে না হলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক একক আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের বেশ কয়েকজন শিল্পীও ইতিমধ্যে একক আবৃত্তি পরিবেশন করে সুনাম বজায় রেখেছেন।

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি, আমাদের আবৃত্তি অঙ্গনে প্রিয়মুখ। সদা হাস্যোজ্জ্বল এই শিল্পীর কবিতা নানা সময়ে উপভোগ্য হয়ে উঠেছে। অনেকদিন ধরে আবৃত্তির ভুবনে পদচারণা হলেও এই প্রথম তার একক পরিবেশনা। কামনা করি তার একক আবৃত্তির অনুষ্ঠান সফল হবে এবং আবৃত্তির নবতর বিকাশে সহায়ক হয়ে উঠবে। আবৃত্তির জয় হোক।

মীর বরকত মীর বরকত, আবৃত্তি প্রশিক্ষক

‘মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র’ ভাললাগার শিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির একক পরিবেশনা ‘মেঘ বৃষ্টি রোদে’ শিরোনামে অনুষ্ঠিত করতে যাচ্ছে জেনে ভালো লাগছে। অভিনন্দন মুক্তধারাকে এই শিল্পীকে সামনে নিয়ে আসার জন্য। অভিনন্দন সুমিকে। সুমির কবিতা বাছাই এবং অনুশীলন তাকে নিজের একটি অবস্থানে অনেকদিন আগেই তৈরি করে দিয়েছে। আবৃত্তিকে ঘিরে তার সৃজনশীল প্রতিভার পরিচয় আমাদের আশাবাদী করে। শিল্পের আশ্রয়ে সামাজিক, মানবিক মূল্যমানগুলো তুলে ধরার ক্ষেত্রে ওর দৃষ্টিভঙ্গি এবং নির্মাণশৈলী অনুসরণযোগ্য। “নক্ষত্রের মৃত্যু” এই রকম একটি কাজ। সুমির একক আবত্তি “মেঘ বৃষ্টি রোদে” ভিন্নি ভিন্ন অনুভবকে আস্বাদন করতে পারবো।

মানুষ সুমি, শিল্পী সুমি সৃজনের আনন্দে, আবত্তি এই একক পরিবেশনাকে সার্থক করে তুলুক। নিশ্চয়ই এই পরিবেশনা একক আবৃত্তির মান প্রতিষ্ঠায় এক সুদূর সঞ্চারি ভূমিকায় উত্তীর্ণ হবে।

জয়তু আবৃত্তির
জয়তু বাংলা ভাষার

Rajinawali Leena
রেজীনা ওয়ালী লীনা রেজীনা ওয়ালী লীনা, আবৃত্তিশিল্পী ও সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির আবৃত্তি অঙ্গনে যাত্রা শুরুর সময় ১৯৯৫ সাল। সেই সময় দেখেছিলাম, দুটি বিনুনী ঝুলিয়ে, সুতীর শাড়ী পরিহিতা, হাস্যোজ্জ্বল মুখ কিন্তু বয়োজেষ্ঠ্যতার ছাপ মুখের রেখায় এঁকে নিয়ে সুদৃঢ় ভঙ্গিতে ঘুরে বেড়াতো আবৃত্তি অঙ্গনে তথা টিএসসিতে। পরে জেনেছিলাম ও আমার থেকে বছর দু’এক ছোট হবে। দুর হতে মনে হতো সুমি খুব শক্ত মানুষ। কিন্তু কাছে এলেই টের পাওয়া যায়, ও কতটা নরম। এই নরমে মনের মানুষটি নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে দুই দশক পরে এমন একটি মাহেন্দ্রক্ষণে এসে পৌঁছেছে, সে ক্ষণটি প্রতিটি শিল্পীর কাছে আরাধ্য। এই দুই দশকে তার চলার পথ ছিল অমসৃণ। নানা প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে সে আবৃত্তি অঙ্গনে তার স্থান করে নিয়েছে। এটুকু সে পেরেছে আবৃত্তিকে ভালোবেসেছে বলেই। (more…)

নায়লা তারান্নুম চৌধুরী কাকলী নায়লা তারান্নুম চৌধুরী কাকলী, আবৃত্তিশিল্পী ও নাট্যশিল্পী

বন্ধুর জন্য শুভ কামনা

আমাদের সহপাঠী-সহযাত্রী-বন্ধু মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি’র একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান।
যে দিন জানলাম মাহমুদা সুমি একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান করতে যাচ্ছে, সে দিন সত্যিই অনেক ভাল লেগেছিল। আমাদের সহপাঠী একজন বন্ধু একক আবৃত্তি করতে যাচ্ছে।

যেদিন থেকে সুমি’র মাথায় মুক্তধারা দিয়ে দিলো ওর একক আবৃত্তি করতে হবে, সেদিন থেকে যখনই কথা হয় তখনই একই কথা এই আমার পড়া আছে, কথা কম বলতে হবে। আমি যতদূর দেখেছি গত দেড়-দুই মাস ধরে ওর মাথায় কবিতা ছাড়া আর কিছুই নেই। ওর সিরিয়াসনেস আমাকে আশান্বিত করেছে। হয়তো ও অনেক ভালো করবে, অথবা অনেকের প্রত্যাশা পূরণে সক্ষম হবে না।

আমার দীর্ঘ আবৃত্তি যাত্রায় যে ক’জন আবৃত্তিশিল্পীকে আন্দোলনে-আবৃত্তিতে নিয়মিত দেখেছি সুমি তাদের মধ্যে একজন। সে রকম একজন শিল্পীর একক আবৃত্তি পরিবেশিত হবে সেটা সত্যিই আমাদের জন্য, বিশেষ করে মেয়েদের জন্য অনুপ্রেরণার। তাই অপেক্ষায় আছি।

মাহমুদা সুমি’র জন্য শুভ কামনা সবসময়। ভালো হোক তোমার আবৃত্তি পরিবেশনা।

জয় হোক মানবতার, জয় হোক আবৃত্তির।

জি এম মোর্শেদ জি এম মোর্শেদ, প্রধান সমন্বয়কারী, চারুকণ্ঠ আবৃত্তি সংসদ

আবৃত্তিশিল্পী সুমি’র একক পরিবেশনা দলের অনুষ্ঠান হিসেবে গণ্য হলো এবং মঞ্চায়ন ২ সেপ্টেম্বর । নিঃসন্দেহে এ সুখবর। সুমী সংসারের দশদিক সামাল দিয়ে সংগঠন করে। সাংগঠনিক কার্যক্রমের সবটা জুড়েই ওর প্রবল উপস্থিতি আমাকে মুগ্ধ করে। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সংগ্রাম-সৃজনের সকল আয়োজনে মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র দলবেঁধে অংশগ্রহণ করে। বিশেষ করে মেয়েরা গত পাঁচ বছর মিছিলের অগ্রভাগে ব্যানার হাতে রাজপথে ছিল নির্ভিক। তাঁদের প্রতি আমার সম্মান অটুট রাখবে তাঁরা এ বিশ্বাস আমার আছে।

সুমি ইতোমধ্য মিছিলের প্রিয়মুখ হয়ে উঠেছে সংস্কৃতি অঙ্গনে। শহীদ মিনারের শতরঞ্জিতে সাদা শাড়ির শ্যামলা মেয়েটির উপস্থিতি যেন আজ অনিবার্য এক বিষয়। সেই মেয়েটি তাঁর নিজস্ব সৃজন চিন্তার পসরা নিয়ে মঞ্চে দাঁড়াবে এতো তাঁরই সংগ্রামের সারথীদের জন্যে আনন্দ সংবাদ। মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের সকল কার্যক্রমে নারী শিল্পী-কর্মীদের ভূমিকা ও তৎপরতা চোখে পড়ার মতো। এই সুবাতাস আমাদের সংস্কৃতি অঙ্গনের প্রতি ঘরে ঘরে পৌঁছে যাক।

সুমিকে মাঝে মাঝে সন্তানের হাত ধরে টি.এস.সির সবুজ চত্ত্বরে বা চায়ের দোকানের আড্ডায় সামিল হতে দেখি। আমি মুগ্ধ নয়নে ঐ দৃশ্য অবলোকন করি আর শ্রদ্ধায় আমার মন ভরে ওঠে, আমার চোখ আদ্র হয় ছোটবেলার আমার মায়ের হাত মনে পড়ে।

সুমি দলের আশা, দশের আশা পূর্ণ করুক শিল্পের শর্তে এই প্রত্যাশা।

হাসান আরিফ হাসান আরিফ, সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট

বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে মানুষ খুবই আত্মকেন্দ্রিক ও যান্ত্রিক হয়ে পড়েছে। রাতারাতি তারকা হয়ে ওঠার চেষ্টায় লিপ্ত। সাধনা ও সিদ্ধির পথে আর তাঁদের ধৈর্য্য থাকে না। কিন্তু এই সময়েও কেউ কেউ হাঁটছেন বর্তমান স্রোতের বিপরীতে। শিল্পের শুদ্ধরূপ চর্চা ও নিজের মধ্যে ধারণ করার জন্য ব্রতী হয়েছেন যারা মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি তাঁদের অন্যতম। মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র এর সাথে তিনি ১৯৯৫ সালে থেকে যুক্ত আছেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি দীর্ঘদিন তিনি আবৃত্তি চর্চায় নিবেদিত। আবৃত্তির মঞ্চে তিনি সরব সব সময়ই। প্রতিবাদ-সংগ্রামেও তিনি ছিলেন সর্বাগ্রে। তাঁর একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান ‘মেঘ-বৃষ্টি-রোদে’ সফল হোক।

অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

আবৃত্তির জয় হোক।

A K M Samsuddoha
এ কে এম সামছুদ্দোহা এ কে এম সামছুদ্দোহা, সভাপতি, সংবৃতা আবৃত্তি চর্চা ও বিকাশ কেন্দ্র

তখনও মাহমুদা সুমির সঙ্গে তেমন জানা-শোনা ছিল না। ২০১০ সালে আবৃত্তি পরিষদ নওগাঁর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হয়ে তার দল মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র নওগাঁর উদ্দেশ্যে যাত্রা করলো। তাদের প্রযোজনা ‘নক্ষত্রের মৃত্যু’ মঞ্চস্থ করার জন্যে। একই বাহনে আমিও একই উদ্দেশ্যে ধাবমান। এবং সেদিনই একজন শিল্পী হিসেবে, নির্দেশক হিসেবে, আবৃত্তির প্রতি নিবেদিত প্রাণবন্ত উচ্ছ্বল এক সুমিকে আমি নতুন করে চিনতে পারি। জীবন যাচ্ছে চলে আমাদের বছর বছর পার। আমার এক সহকর্মীর আত্মীয়তার সুতোর টানে সুমি আমাকে ‘দুলাভাই’ ডাকে প্রতি উত্তরে আমাকেও বলতে হয়…..।

সুমি খুব আত্মসচেতন আত্মমর্যাদায় আপোষহীন আবার একইসাথে সদাহাস্যোজ্জ্বল সদালাপী আবৃত্তিজন। সুমি গর্ব করতে পারে তার দল নিয়ে। রফিক ভাই-এর হৃদয়প্রতিথ নেতৃত্ব মুক্তধারা একটি পরিবারের মতো আত্মার বন্ধনে গ্রন্থিত। সুমিকে ভারমুক্ত রেখে দিতে তার একক আবৃত্তি আয়োজনের ভারটা ভাগ করে নিয়েছে সবাই। মুগ্ধ হতে হয়।

সুমি মঞ্চে, টেলিভিশনে, মিছিলে, সংগ্রামে আমাদের সহযাত্রী। যেকোন শিল্পীর জন্যই একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান গৌরবের, আনন্দের, রোমাঞ্চের, আর সাধনার প্রতিবিম্ব। মেঘ বৃষ্টির সজীব নিমগ্নতা, নির্জনতা রিমঝিম অথবা টুপটাপ বৃষ্টির ছন্দে তার কণ্ঠে আবৃত্তিময় হবে, আবার রৌদ্রের প্রখর আলোয় উদ্ভাসিত হবে পুরো মিলনায়তন আশা করি।

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি, অভিবাদন।

জয়তু আবৃত্তি।

মাসকুর-এ-সাত্তার কল্লোল মাসকুর-এ-সাত্তার কল্লোল, যুগ্ম-সম্পাদক, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ

বাংলাদেশে শিল্প হিসেবে আবৃত্তির দুটি অনিবার্য দিক রয়েছে- ১. আবৃত্তি চর্চা এবং ২. আবৃত্তি শিল্পের জন্য লড়াই। আমার এবং আমার পরবর্তী প্রজন্মের অনেকেই এর যেকোনো একটি দিকেই মনোনিবেশ করেছেন। অপরটি থেকে গেছে অবহেলিত। সুমিকে আমার প্রথম অভিনন্দন, শ্রদ্ধা ও ঈর্ষা সেখানেই- সে একাধারে আবৃত্তি চর্চা ও আবৃত্তির জন্য লড়াই এর একজন নিরন্তর নিবেদিত কর্মী। সুমি একটু একটু করে নিজেকে তৈরি করেছে এবং প্রতিনিয়ত উৎকর্ষতার সাধনায় রত রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি সুমির প্রথম একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান তার আবৃত্তি জীবনের কোনো চূড়ান্ত ফসল নয়, বরং সাগর তীরের অসংখ্য নুড়ির মধ্যে একটি নুড়ি কুড়ানোর প্রয়াস মাত্র। এমন অজস্র নুড়িতে সমৃদ্ধি হবে তার আগামীর পথচলা। সুমির লাস্যময়তা, তারুণ্য, আবৃত্তি অঙ্গনে বর্ণিল উপস্থিতি এবং সর্বোপরি শিল্পী হিসেবে উদাত্ত উচ্চারণ আমাদের প্রাণিত করে, সাহসী করে। এই প্রাণ। এই সাহস সঞ্চারিত হোক আবৃত্তির সব প্রজন্মে। সুমি, সার্থক হোক তোমার একক আবৃত্তির প্রথম অনুষ্ঠান।

Muktodhara
অনন্যা লাবনী পুতুল অনন্যা লাবনী পুতুল, স্বনন, ঢাকা

সেদিনের সেই অস্থিরমতি কিশোরী আজ
অগনিত শ্রোতার সামনে একাকী দাঁড়াবে শুনে
একটু বিষ্মিত, একটু শঙ্কিত।
পারবে তো!!

আন্তরিক প্রার্থনা পারুক, সুন্দর করেই পারুক।
উপস্থিত সকলকে অ-নেক দিন মনে রাখার
মত সন্ধ্যে উপহার দিক।
নিরন্তর ভালো হোক।


Muktodhara


 

শিল্পী আহসান শিল্পী আহসান

শুভেচ্ছা

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি। একাধারে আবৃত্তিশিল্পী, নির্দেশক, সংগঠক ও কর্মী। আবৃত্তি অঙ্গনে যাঁর পথচলার বয়স দুুইদশক ছাড়িয়েছে। দূরপাল্লার সাংগঠনিক এই অভিযাত্রায় তিনি তাঁর পরিবেশনায় যেমন দেখিয়েছেন মুন্সিয়ানা এবং প্রতিভার পরিচয়, তেমনি সক্রিয় থেকেছেন সংস্কৃতির সকল অধিকার আদায়ের আন্দোলন-সংগ্রামে। সদাহাস্য এই শিল্পী যেমন বন্ধুবৎসল, ঠিক তেমনি আবৃত্তির সাধনায় নিরন্তর নিবিষ্ট।

মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র’র আয়োজনে ‘মেঘ বৃষ্টি রোদে’ তাঁর প্রথম দীর্ঘ একক পরিবেশনা। সফল ও সার্থক হোক এই আয়োজন। শিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমিকে জানাই আমাদের সংগঠন ‘প্রকাশ’-এর সকল সদস্যের পক্ষ থেকে অশেষ শুভেচ্ছা, শুভকামনা এবং অভিনন্দন।

ফয়জুল আলম পাপ্পু ফয়জুল আলম পাপ্পু, আবৃত্তিশিল্পী, সাধারণ সম্পাদক, প্রকাশ সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠন

ওরে কে আছে মুক্ত জীবন নিয়ে ছন্নছাড়া-
আপনাকে ভালোবেসে আপনদেশে ঠিকানাহারা?
তবে বন্ধু নৌকা ভেড়াও মুছিয়ে দেবো দুঃখ সবার।
তবে বন্ধু নৌকা ভেড়াও শুনাবো গান আজ সারারাত।

হ্যাঁ সংসার, সন্তান পরিবার সব কিছু সামলে শিল্পের আঙ্গিনায় পা রেখে কবিতাকে সাথী করে নৌকা ভাসিয়ে চলছে সুমি।
কিসের তাড়নায়? যেখানে অর্থদ-ি, বিকেলে বাসের জন্য ঠায় দাঁড়িয়ে থাকা, দেরিতে পৌঁছলে নির্দেশকের বকুনি, রাতে বাড়ি ফিরতে দেরি হলে বাসার লোকের গম্ভীর মুখ এইতো প্রাপ্তি। তবুও শান্তি, তবু আনন্দ, তবু অনন্ত ধামে।

প্রাপ্তিতো আছেই, যে কবিতা শুনতে জানে না সে মায়ের কোলে শুয়ে গল্প শুনতে পারে না, মানুষকে ভালোবাসতে পারে না। ‘সুমি’ আমাদের বন্ধু, মোরা যাত্রি একই তরণীর, সহযাত্রী একই তরণীর। তাঁর ‘একক আবৃত্তি’ সাহসি পদক্ষেপ অনেকগুলো কবিতার মালা গেঁথে হাজির হচ্ছে দর্শকদের সামনে। কিছু হাততালি নিয়ে ক্লান্ত দেহে বাড়ি ফেরা। এই প্রাপ্তিটুকু ছাড়া আর কিইবা চাই আমরা! মানুষের ভালোবাসা পাওয়া আর মানুষকে ভালোবাসা দেয়া। এটাই এই ছন্নছাড়া জীবনের প্রাপ্তি।

সদা হাস্যময়ী, কাব্যপ্রেমী, বিনয় যার ধর্ম, প্রতিবাদ যার অহঙ্কার সততা যার অলংকার সেই সুমির আবৃত্তি শুনে আরেকটি সন্ধ্যাকে উপলব্ধি করি সুমির সাহসি উচ্চারণে।

এগিয়ে যাও বন্ধু, এগিয়ে যাও সহযাত্রী।

Muktodhara
ফখরুল ইসলাম তারা ফখরুল ইসলাম তারা, স্রোত আবৃত্তি সংসদ

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি এক এক দৃঢ়প্রত্যয়ী আবৃত্তিশিল্পী, সংগঠক ও নির্দেশক। দুই দশক ধরে তাঁর আবত্তিশিল্পে বসবাস।

আত্মপ্রত্যয়, একাগ্রতা, নিষ্ঠা তাঁকে এগিয়েছে বহুদূর। মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের সাথে তাঁর পথচলা ১৯৯৫ থেকে। এই দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় নিজগুনেই দর্শক শ্রোতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তাঁর আবৃত্তি উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে। দর্শক নন্দিত হয়েছে তাঁর গ্রন্থিত ও নির্দেশিত প্রযোজনাসমূহ।

সকল প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে সুমি আবৃত্তিশিল্পকে জয় করবে- এই আমাদের শুভ কামনা।

নিত্য শুভার্থী

ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু, সভাপতি ক’জনা

‘মেঘ বৃষ্টি রোদে’ শিরোনামে মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি’র একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আগামী ২ সেপ্টেম্বর ২০১৬ অনুষ্ঠিত হবে। সুমিকে আমি চিনি দীর্ঘদিন যাবৎ সেই কিশোরী বেলা থেকেই। সেই কিশোরীর আজ একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান। জেনে-শুনে অনেক ভালো লাগছে। যতদূর দেখেছি সুমি আবৃত্তির প্রতি নিবেদিত প্রাণ একজন মানুষ।

মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির আবৃত্তি অনুষ্ঠান সফল হোকে এই কামনা করছি। জয় হোক সুমি’র। জয় হোক আমাদের মানবিকতা।

মোশাররফ হোসেন মোশাররফ হোসেন, সভাপতি, দৃষ্টি

মেঘ বৃষ্টি রৌদ্রের খেলা
চলুক অকারণ সারাবেলা
চলুক দিগন্তের অবশেষে
শিল্পিত পদযাত্রা অনিমেষে।
সুমির স্বর প্রক্ষেপণের
শুভক্ষণটি স্মরণীয় হোক।

এনামুল হক বাবু এনামুল হক বাবু, কথা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র

সুহাসীনি আবৃত্তি শিল্পী মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি প্রাণোউচ্ছ্বল কর্মপ্রিয় আবৃত্তি শিল্পীর একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানের সার্বিক সাফল্য কামনা করছি। টিএসসি’র সাংস্কৃতিক কর্মীদের প্রায় সকল সভায় তার উজ্জ্বল উপস্থিতি এবং আন্দোলন সংগ্রামে তার সম্পৃক্ততা প্রায় অনিবার্য। দীর্ঘদিন ধরে আবৃত্তি চর্চা শিল্পের সাথে যুক্ত এই নবীন শিল্পী একসময় দীর্ঘপথ চলায় নারী আবৃত্তি শিল্পীদের মধ্যে বিশেষ অবস্থান প্রতিষ্ঠায় সফল হবে এ কামনাই করি।

বিশেষ করে তার সারল্য ও কর্মনিষ্ঠা অন্যান্য আবৃত্তি শিল্পীদের জন্য অনুকরণীয়। তার জীবনের সকল ক্ষেত্রে আবৃত্তি দীপ্ত উচ্চারণে আগামীর কঠিন পথচলা সুগম হোক।

মানজার চৌধুরী সুইট মানজার চৌধুরী সুইট, সংস্কৃতি কর্মী

শুভেচ্ছা

সমকালীন বাংলাদেশে আবৃত্তি এক বলিষ্ঠ শিল্পমাধ্যম হিসেবে ইতোমধ্যে তার অবস্থানকে দৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড় করিয়েছে। বাংলা ভাষা ও শিল্পের প্রতি অনুরাগ এবং সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা-ঋদ্ধ হাজার হাজার তরুণ-তরুণী আবৃত্তি চর্চার সাথে ইতিমধ্যে যুক্ত হয়েছে। দলগত প্রচেষ্টা এবং ব্যক্তিগত উদ্যোগ দুটোই আবৃত্তির বিকাশের ক্ষেত্রে নিয়ামক শক্তি হিসেবে কাজ করেছে। সৃজনে সংগ্রামে আবৃত্তির এ মহাযজ্ঞে মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র এক বলিষ্ঠ নাম। একঝাঁক আবৃত্তি-অন্তপ্রাণ সমাজ সচেতন তরুণ-তরুণীর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের মুক্তধারা। মুক্তধারার এই উত্থান ও বিকাশে যারা বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখে চলেছে তাদের অন্যতম মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি। গভীর অন্তর দৃষ্টি দিয়ে সমাজকে দেখা আর সমাজের কল্যাণে মানুষকে ভালোবেসে আবৃত্তি চর্চায় নিয়োজিত এক শিল্পীর নাম মাহমুদা সিদ্দিকা সুমি।

সম্প্রতি বছরগুলোতে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জঙ্গীবাদ বিরোধী সংগ্রাম এবং নারী অধিকারের প্রশ্নে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ আয়োজিত ডাকা আন্দোলনের প্রতিটি কর্মসূচিতে তার আত্মপ্রত্যয়ী উপস্থিতি ও সাহসী উচ্চারণ সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। আমি সমাজ সচেতন এই শিল্পীর একক আবৃত্তি অনুষ্ঠান আয়োজিত হচ্ছে জেনে যার পর নাই আনন্দিত। এবং এই আয়োজনের সফলতা কামনা করছি।

জয় হোক আবৃত্তির
জয় হোক মুক্তধারার
জয় হোক মাহমুদা সিদ্দিকা সুমির।

Golam Quddus
গোলাম কুদ্দুছ গোলাম কুদ্দুছ, সভাপতি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট

সৌম্য সুমি, সাম্যে সুমি, সংগ্রামে সুমি। আবৃত্তিশিল্পের সাধনায়, নিজস্ব চর্চায়, সাংগঠনিক চর্চায়, আবৃত্তি আন্দোলনে এবং সকল সাংস্কৃতিক আন্দোলন তথা প্রগতিশীল অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক আন্দোলনে মঞ্চে, রাজপথে সুমির উজ্জ্বল উপস্থিতি দীর্ঘদিনের।

প্রায় ২০ বছরের সক্রিয় আবৃত্তিশিল্পী ও কর্মী সুমির একক আবৃত্তি অনুষ্ঠানে সৌম্য-সাম্য আর সংগ্রামের উচ্চারণ দর্শক-শ্রোতা নন্দিত হোক এই প্রত্যাশা।

মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রকে ধন্যবাদ এই অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য।

জয় হোক সুমির, জয় হোক আবৃত্তির।

M. Ahkam Ullah
মো. আহ্কাম উল্লাহ্ মো. আহ্কাম উল্লাহ্, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ

বিজ্ঞাপনদাতা

Muktodhara
Impression Media Communication
darji bari
Baby Zinc
loomoutfit
ACME
Janata Bank Ltd
hankook
Malaysia-Airlines
kerry logistics

সুমির আবৃতিকৃত একটি কবিতা রক্তাম্বরধারিনী মা – কাজী নজরুল ইসলাম এর ভিডিও চিত্রঃ


সুমির একক সন্ধ্যা "মেঘ বৃষ্টি রোদে" এর অন্যান্য কবিতাগুলোর ইউটিউব (Youtube) লিংক ঃ
https://www.youtube.com/playlist?list=PLevN3vsV0m0B74PvhvoZxoK8Al1ARGFkP

 

সুমির আবৃত্তিকৃত অন্যান্য কবিতাগুলোর ইউটিউব (Youtube) লিংক ঃ
https://www.youtube.com/playlist?list=PLevN3vsV0m0DWJca7yZB6pkn-aRihtFws